1. shahjahanbiswas74@gmail.com : Shahjahan Biswas : Shahjahan Biswas
  2. ssexpressit@gmail.com : sonarbanglanews :
বুধবার, ০১ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০৩:২০ অপরাহ্ন

নির্বাচন আসলেই বিভিন্ন ষড়যন্ত্র শুরু হয়: মির্জা আজম

  • সর্বশেষ আপডেট : শনিবার, ৩ ডিসেম্বর, ২০২২
  • ৮৫ বার পড়েছেন

সাদেকুর রহমান, শিবালয় প্রতিনিধি: আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মির্জা আজম এমপি বলেছেন, আগে যখন এলাকায় যেতাম বিদ্যুতের জন্য লোকজন রাস্তা আটকে ধরতো। এখন আর কেউ বিদ্যুতের জন্য আসেন না। সকলের বাড়িতে বিদ্যুতের সংযোগ হয়েছে। তিনি দেশে বিভিন্ন উন্নয়নের চিত্র তুলে ধরেন।জিয়া বঙ্গবন্ধুকে যেভাবে হত্যা করা হয়েছিল তাকেও সেভাবে চলে যেতে হয়েছে। নির্বাচন আসলেই বিভিন্ন ষড়যন্ত্র শুরু হয়। আপনাদের সজাগ থাকতে হবে এবং ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে।

শুক্রবার বিকেলে শিবালয় উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মির্জা আজম এসব কথা বলেন।

তিনি আরও বলেন, জাতির পিতাকে সহপরিবারে হত্যা করেছে জিয়াউর রহমান। জিয়াউর রহমান ক্ষমতায় আসার পর এ দেশে যুদ্ধাপরাধীদের প্রতিষ্ঠিত করেছিল। তাদেরকে ব্যবসা বাণিজ্যের সুযোগ করে দিয়ে মোটাতাজা করেছেন। তার সময় প্রধানমন্ত্রী করেছিলেন রাজাকার শাহ আজিজকে। সে সময় মুক্তিযুদ্ধের স্লোগান জয় বাংলাকে নিষিদ্ধ করা হয়েছিল। নিষিদ্ধ করা হয়েছিল মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক চলচিত্র। সে সময় মুক্তিযোদ্ধারা ছিল সবচেয়ে অবহেলিত। বঙ্গবন্ধু হত্যার বিচার যেন না হয় সে জন্য আইন পাশ করেছিল জিয়াউর রহমান।

তিনি আরো বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যা বলেন তাই করেন। নির্বাচনের আগে বলেছিলেন যুদ্ধাপরাধীদের বিচার করবেন করেছেন, বঙ্গবন্ধুর হত্যাকারীদের বিচার করবেন করেছেন। একুশ সালের মধ্যে এ দেশকে মধ্যম আয়ের দেশে উন্নীত করবেন করেছেন। পদ্মা সেতু নির্মাণে দাতা দেশ গুলো যখন দুর্নীতির অজুহাতে ঋণ দেওয়া বন্ধ করে দিলেন তখন প্রধানমন্ত্রী বলেছিলেন নিজস্ব অর্থায়নে পদ্মা সেতু হবে তিনি তা করে দেখিয়েছেন। বঙ্গবন্ধুর ডাকে নিরস্ত্র মানুষ গেরিলা যোদ্ধা হয়েছিল। বঙ্গবন্ধুর ডাকে নয় মাসের যুদ্ধে আমরা দেশকে স্বাধীন করেছিলাম।

শিবালয় উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি রেজাউর রহমান খান জানুর সভাপতিত্বে অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন, স্থানীয় সংসদ সদস্য এ এম নাঈমুর রহমান দুর্জয়, আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সদস্য ডা. মোস্তফা জালাল মহিউদ্দিন, এবিএম রিয়াজুল কবির কায়সার, আনোয়ার হোসেন, শাহাবুদ্দিন ফরাজী, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এড. গোলাম মহীউদ্দীন, সাধারণ সম্পাদক এড. আব্দুস সালাম।

শিবালয় আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল কুদ্দুস, জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বদরুল ইসলাম খান বাবলু, সুলতানুল আজম খান আপেল, কাজী এনায়েত হোসেন টিপু প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

উক্ত অনুষ্ঠান সঞ্চালনার দায়ীত্বে ছিলেন, শিবালয় উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল কুদ্দুস।

খবরটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও খবর পড়ুন :