1. shahjahanbiswas74@gmail.com : Shahjahan Biswas : Shahjahan Biswas
  2. ssexpressit@gmail.com : sonarbanglanews :
বুধবার, ২১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০৫:০৮ পূর্বাহ্ন
সর্বশেষ :
শিবালয়ে জাফরগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয়ে বার্ষিক পুরস্কার বিতরনী অনুষ্ঠিত গাইবান্ধার পলাশবাড়ীতে প্রতিবন্ধী সেবা সংস্থার ৯ম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী মেডিক্যাল ভর্তি পরীক্ষায় প্রথম হয়েছে তানজিম মুনতাকা নিম্নমানের চিনি ব্যান্ডের প্যাকেটে বিক্রির দায়ে মানিকগঞ্জের এক ব্যবসায়ীকে আড়াই লাখ টাকা জরিমানা শিবালয়ে সাংবাদিকদের সাথে ইউএনও’র মতবিনিময় টাঙ্গাইল জেলা সাংবাদিক ফোরামে’র সভাপতি বাদশা সম্পাদক আছাব ‘মানিকগঞ্জ সমিতি ইউকে’র উপদেষ্টা ও কার্যনির্বাহী পরিষদ গঠিত মানিকগঞ্জে কসমেটিকস শোরুমের উদ্বোধন করলেন পরীমনি মানিকগঞ্জে খাবার হোটেলে অভিযান,জরিমানা তিন লাখ সুলতানগঞ্জ-ময়া ভারতের সাথে সর্ম্পকের নতুন মাইলফলক: নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী

চট্টগ্রামে বাংলাদেশ নেভাল একাডেমীতে রাষ্ট্রপতি কুচকাওয়াজে প্রধানমন্ত্রী

  • সর্বশেষ আপডেট : বৃহস্পতিবার, ২২ ডিসেম্বর, ২০২২
  • ১৩০ বার পড়েছেন

অনলাইন ডেস্ক: চট্টগ্রামে বাংলাদেশ নেভাল একাডেমীতে নৌবাহিনীর মিডশিপম্যান ২০২০/এ এবং ডাইরেক্ট এন্ট্রি অফিসার (ডিইও) ২০২২/বি ব্যাচের শীতকালীন রাষ্ট্রপতি কুচকাওয়াজ অনুষ্ঠানে যোগ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বৃহস্পতিবার সকালে চট্টগ্রামে বাংলাদেশ নেভাল একাডেমীর এই অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে যোগ দেন তিনি। নবীন অফিসারদের কুচকাওয়াজ পরিদর্শন ও সালাম গ্রহণ করেন সরকারপ্রধান।

কুচকাওয়াজ অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ নৌবাহিনীর ২০২০/এ ব্যাচের ৩৭ জন মিডশিপম্যান এবং ২০২২/বি ব্যাচের ৬ জন ডাইরেক্ট এন্ট্রি অফিসারসহ সর্বমোট ৪৩ জন নবীন কর্মকর্তাকে কমিশন প্রদান করা হয়। এদের মধ্যে ৯ জন মহিলা এবং ২ জন প্যালেস্টাইনের কর্মকর্তা রয়েছেন।

অনুষ্ঠানে সেরা মিডশিপম্যান শাহীদ আবেদীন আকিফকে তুলে দেন ‘সোর্ড অব অনার’। ‘নৌ প্রধান স্বর্ণ পদক’ পান মিডশিপম্যান এ এইচ এম মাহমুদুন নবী। ‘বীর শ্রেষ্ঠ শহীদ রুহুল আমিন স্বর্ণ পদক’ লাভ করেন, ডাইরেক্ট এন্ট্রি অফিসার ব্যাচ থেকে আল রেদুয়ান মাজরু।

পরে দেশরক্ষার শপথ গ্রহণ করেন কমিশনপ্রাপ্ত নবীন কর্মকর্তারা। নবীন অফিসারদের অভিনন্দন জানান প্রধানমন্ত্রী। তাদেরকে বাহিনীর শৃঙ্খলা মেনে চলার দিকনির্দেশনা দেন তিনি। নৌবাহিনীর আধুনিকায়নে সরকারের বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্প তুলে ধরেন সরকারপ্রধান।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ভবিষ্যতে কখনো যুদ্ধের প্রয়োজন হলে, সেই যুদ্ধে যাতে বাংলাদেশ বিজয়ী হতে পারে, সে অনুযায়ী তৈরি করা হচ্ছে তিন বাহিনীর সদস্যদের।

প্রধান অতিথি আরও বলেন,‘ নবীন কর্মকর্তারা নেভাল একাডেমী থেকে অর্জিত জ্ঞান যথাযথভাবে কাজে লাগিয়ে নিজেদেরকে যোগ্য কর্মকর্তা হিসেবে গড়ে তুলবে এবং ভবিষ্যৎ কর্মজীবনে এই প্রশিক্ষণ কাজে লাগিয়ে জাতীয় নিরাপত্তা ও অগ্রগতির পথে সঠিকভাবে দায়িত্ব পালনে সক্ষম হবে।’

তিনি পেশা হিসেবে দেশ সেবার এ পবিত্র দায়িত্বকে বেছে নেয়ায় নবীন কর্মকর্তাদেরকে আন্তরিক অভিনন্দন জানান। প্রধান অতিথি নবীন কর্মকর্তাদের মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও আদর্শে উদ্বুদ্ধ হয়ে স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্ব অটুট রাখার দৃঢ় প্রত্যয় নিয়ে কাজ করে যাবার প্রত্যাশা ব্যক্ত করেন।

এর আগে প্রধানমন্ত্রী বাংলাদেশ নেভাল একাডেমীতে এসে পৌঁছালে নৌবাহিনী প্রধান এডমিরাল এম শাহীন ইকবাল তাঁকে স্বাগত জানান। এছাড়া কুচকাওয়াজ অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে মন্ত্রী পরিষদের সদস্য, সেনা ও বিমান বাহিনীর প্রধান, সংসদ সদস্য, নৌ সদর দপ্তরের পিএসও, সেনা, নৌ ও বিমান বাহিনীর আঞ্চলিক কমান্ডারসহ ঊর্ধ্বতন সামরিক ও অসামরিক কর্মকর্তা, মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণকারী নৌ কমান্ডোসহ বিশিষ্ট ব্যক্তিরা, দেশী-বিদেশী কূটনীতিক এবং শিক্ষা সমাপনী ব্যাচের অভিভাবকরা উপস্থিত থেকে মনোজ্ঞ এ কুচকাওয়াজ উপভোগ করেন।

খবরটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও খবর পড়ুন :