1. shahjahanbiswas74@gmail.com : Shahjahan Biswas : Shahjahan Biswas
  2. ssexpressit@gmail.com : sonarbanglanews :
বুধবার, ০১ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০২:৫৩ অপরাহ্ন

ইন্দোনেশিয়ায় ২০২৪ সালে উড়ন্ত গাড়ি

  • সর্বশেষ আপডেট : সোমবার, ৫ ডিসেম্বর, ২০২২
  • ৫৩ বার পড়েছেন

অনলাইন ডেস্ক: ইন্দোনেশিয়ার ভবিষ্যৎ ক্যাপিটাল সিটি নুসন্তরায় হুন্দাইয়ের উড়ন্ত গাড়ির পরীক্ষামূলক ড্রাইভিং চালানো হবে ২০২৪ সালে। নুসন্তরায়ের জাতীয় রাজধানী কর্তৃপক্ষের ‘গ্রিন ও ডিজিটাল ট্রান্সফরমেশন’ বিভাগের ডেপুটি হেড মোহাম্মাদ আলি বিরওয়াই বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, এ বিষয়ে দেশটির সরকারের সঙ্গে হুন্দাইয়ের এক সমঝোতা স্বাক্ষর করেছে যার অধীনে ‘অ্যাডভানস এয়ার মোবিলিটি’ (এএএম) প্রকল্প বাস্তবায়িত হবে।

ইন্দোনেশিয়ার বর্তমান রাজধানী জাকার্তায় আলোচনাকালে এ পরীক্ষামূলক কার্যক্রমের কথা জানান মোহাম্মাদ আলি। এ সমঝোতার অংশ হিসেবে দক্ষিণ কোরিয়ার অটোমোটিভ প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠান ইন্দোনেশিয়ায় এএএম প্রকল্পটিকে প্রস্তুত করবে।

যদিও উড়ন্ত গাড়ির ধারণাটি এখনও ‘কল্পনা’ জগতেই অনেকটা আটকে রয়েছে, তারপরও এ প্রকল্পের মাধ্যমে ‘আগত ভবিষ্যতের জন্য প্রস্তুতি’ হিসেবে বর্ণনা করেছেন মোহাম্মাদ। নুসন্তরায় এ প্রকল্প চালু হতে আরও কয়েক দশক লেগে যেতে পারে বলেও ধারণা প্রকাশ করেন তিনি।

তিনি বলেন, ‘এ শহরটিকে আসলে ২০২৪ সালের জন্য প্রস্তুত করছি না আমরা, বরং ২০৪৫ সালের জন্য এই প্রস্তুতি। আশা করা যাচ্ছে সে সময় এ (উড়ন্ত গাড়ি) প্রযুক্তি নিয়মিত ব্যবহার হবে। বর্তমানে হয়তো উড়ন্ত গাড়ির কথা চিন্তা করাকেও কল্পনা হিসেবে দেখছেন অনেকে। কিন্তু ২০৩৫ মধ্যে এটাই হয়তো স্বাভাবিক হয়ে যাবে। আর এ প্রযুক্তি ব্যবহারের পথ প্রদর্শক হতে পারি আমরা।’

ইন্দোনেশিয়ার এ সরকারি কর্মকর্তা জানান, হুন্দাইয়ের এ গাড়ি অনেকটা ড্রোনের মতো কাজ করবে এবং মানুষ ও পণ্য পরিবহন করবে। মূলত যেসব স্থানে সড়কপথে যাওয়া কঠিন, যেমন-পাহাড়, এমন স্থানগুলোতে এ গাড়িটি যেতে পারবে।

ইন্দোনেশিয়ার প্রেসিডেন্ট জোকো উইদোদো ২০১৯ সালের আগস্টে দেশটির রাজধানী জাকার্তা থেকে নুসন্তরায়ে স্থানান্তরের ঘোষণা দেন। মূলত জাকার্তায় যানজট, দূষণ, ঘনবসতি এবং জাভা সমুদ্রে ধীরে ধীরে এ শহরটি ডুবে যাওয়ার কারণে এখান থেকে রাজধানী স্থানান্তরের কথা বলেন তিনি।

জাকার্তা থেকে রাজধানী পরিবর্তনে প্রায় ৩১৬০ কোটি মার্কিন ডলার খরচ করবে ইন্দোনেশিয়া এবং এর জন্য ১০ বছর বা তার বেশি সময় লাগবে। দেশটির সরকার আশা করছে নতুন রাজধানীতে দ্রুতই তারা সরকারি অফিসগুলো স্থানান্তর শুরু করবে।

খবরটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও খবর পড়ুন :